কভিড-১৯: যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা জারি

কভিড-১৯: যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা জারি

যুক্তরাষ্ট্রে কভিড-১৯ এর সংক্রমণ মোকাবিলায় জরুরি অবস্থা জারি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সামনে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ঘোষণা করেন তিনি। এসময় ভাইরাস মোকাবিলায় ৫০ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৭০১ জন কভিড আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৪০ জন। নতুন করে সংক্রমণ রোধে যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি রাজ্যে বড় ধরনের জনসমাগম, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও স্কুল বন্ধসহ নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ভাইরাস রোধে এর আগে ইউরোপের ২৬টি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

বিবিসির বরাতে জানা যায়, আমেরিকানদের ঠিকমতো কভিড-১৯ পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে ব্যর্থতার জন্য সম্প্রতি প্রশ্নের মুখে পড়ে ট্রাম্প প্রশাসন।

এর আগে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সোয়াইন ফ্লু ভাইরাস মোকাবিলায় জরুরি অবস্থা জারির করেছিলেন। তার আগে আরেক সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছিলেন ওয়েস্ট নাইল ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে।

এদিকে, ইউরোপকে এখন কভিড-১৯ ছড়ানোর মুলকেন্দ্র হিসেবে উল্লেখ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাকি বিশ্বের চেয়ে বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা জানিয়েছে সংস্থাটি।

ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় ২৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আড়াই হাজার মানুষ। দেশটিতে মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ২৬৬ জনে, আর আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ৬৬০ জন।

স্পেনেও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। শনিবার থেকে দুই সপ্তাহ এই বিশেষ অবস্থা থাকবে।

বিদেশ থেকে আসা পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পোল্যান্ড ও ইউক্রেন। গুয়াতেমালা ও উরুগুয়েতে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয়েছে ভাইরাস।

এছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন আক্রান্ত হয়েছে ১২শ মানুষ।

ভারতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ জনের প্রাণহানি হলো।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান শহরের একটি বন্যপ্রাণীর বাজার থেকে ছড়িয়ে পড়ে এই ভাইরাস। এক পর্যায়ে ২০২০ সালের ১১ মার্চ এ ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে মহামারি পরিস্থিতি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

খবরটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.




© All rights reserved © 2018-20 boguratribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com