কভিডে একদিনে ১৫০০ জনের মৃত্যু

কভিডে একদিনে ১৫০০ জনের মৃত্যু

কভিডে মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় কভিড-১৯-এ সারাবিশ্বে ১৫০০শোর বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ছড়িয়েছে ১৮৫ দেশ-অঞ্চলে। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৬৫৪ জনে। আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৪০ হাজার। অপরদিকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯৮ হাজার ৮৮৪ মানুষ।

সংক্রমণ ঠেকাতে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লিসহ ৮০টি শহর লকডাউন করেছে ভারত সরকার। বিস্তার ঠেকাতে ৩০ দিনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে স্পেন সরকার। ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সোমবার থেকে আগামী ২১ দিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কার্ফিউ জারি করেছে সৌদি রাজা সালমান। সংক্রমণ কমাতে লকডাউন ঘোষণা করেছে গ্রিস সরকার। সোমবার থেকে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডের সকল শাখা বন্ধ করছে ম্যাকডনাল্ডস।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪শ ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত বেড়ে দাড়িয়েছে ৩২ হাজার। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিউ ইয়র্ক, ক্যালিফর্নিয়া ও ওয়াশিংটনে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়ন করেছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। এদিকে, কোভিড নাইন্টিনে চেক রিপাবলিকে প্রথম মৃত্যু হয়েছে। সিরিয়ায় শনাক্ত হয়েছে প্রথম কোভিড রোগী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জরুরি আইন ব্যবস্থা গ্রহন করেছে ফ্রান্স সরকার। বিস্তার ঠেকাতে পাব, ক্লাব, জিম, ক্যাফে, সিনেমাহল ও উপাসনালয়ের মতো সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এ কড়াকড়ি পদক্ষেপের ঘোষণা দেন।

ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। সব মিলিয়ে ইতালিতে প্রাণ হারালেন ৫ হাজার ৪৭৬ জন। যেখানে চীনে মারা গেছেন ৩ হাজার ২৬১ জন। ইতালিতে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা ১৩ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়েছে। কভিডে কমপক্ষে ১৮ জন চিকিৎসক মারা গেছেন দেশটিতে।

ইতালিতে শনিবারের ৫৩ হাজার ৫৭৮ এর তুলনায় রোববার মোট আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ৫৯ হাজার ১৩৮। এই হিসেবে আক্রান্তের হার বেড়েছে ১০ দশমিক ৪ শতাংশ। আক্রান্তদের মধ্যে ৭ হাজার ২৪ জন অবশ্য সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন। তবে আশঙ্কার বিষয় হলো ইতালিতে বর্তমানে ১ হাজার ৯ জন কভিড রোগী বিভিন্ন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। যাদের অবস্থাও ভালো না। ইতালিতে সবচেয়ে বেশি ছোবল মেরেছে উত্তরের লোম্বার্ডি অঞ্চলে। কভিড সংক্রমণের উৎস দেশে চীনে ক্রমান্বয়ে পরিস্থিতির উন্নতি ঘটলেও ইতালি প্রথম মৃত্যুর পর এক মাস না গড়াতেই মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে যায়। চীনে প্রাণহানির সংখ্যাটা ৩ হাজার ২৭০। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭২৭০৩ এবং আক্রান্ত ৮১০৯৩।

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় ১১২ জন মানুষ কভিড সংক্রমিত হয়ে প্রাণ হারালেন। দেশটিতে কভিড শুরুর পর একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এটি। যুক্তরাষ্ট্রে এখনো পর্যন্ত মত্যুর সংখ্যা ৪১৪ জন। সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত জনবহুল নিউইয়র্ক। আরো ৮ হাজার ১৪৯ জন কভিড আক্রান্ত হয়েছেন । এ নিয়ে বিশ্বের সর্ববৃহৎ অর্থনীতির দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ হাজার ৩৫৬ জনে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিউ ইয়র্ক, ক্যালিফর্নিয়া ও ওয়াশিংটনে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়ন করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এছাড়াও স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১৭৭২ এবং লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত যার সংখ্যা দাড়িয়েছে ২৮৭৬৮ এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২৫৭৫। বিস্তার ঠেকাতে ৩০ দিনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে স্পেন সরকার।

আক্রান্ত ও মৃত্যুতে ইতালি ও স্পেনের পরই ফ্রান্সের অবস্থান। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ১১২ জন কভিড-১৯ রোগী প্রাণ হারিয়েছেন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন দেড় সহস্রাধিক। স্থানীয় সময় রোববার দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধানের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, একদিনে শতাধিক মৃত্যুর পর সংখ্যাটা বেড়ে হয়েছে ৬৭৪ জন। এছাড়া নতুন করে ১ হাজার ৫৫৯ জন কভিডে আক্রান্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১৬ হাজার ১৮টি। প্রতিনিয়তই দেশটিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জরুরি আইন ব্যবস্থা গ্রহন করেছে ফ্রান্স সরকার।

ইরানে ১২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সোমবার থেকে আগামী ২১ দিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কার্ফিউ জারি করেছে সৌদি রাজা সালমান। সংক্রমণ কমাতে লকডাউন ঘোষণা করেছে গ্রিস সরকার।

সোমবার থেকে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডের সকল শাখা বন্ধ করছে ম্যাকডনাল্ডস। এদিকে কভিড নাইন্টিনে চেক রিপাবলিকে প্রথম মৃত্যু হয়েছে। সিরিয়ায় শনাক্ত হয়েছে প্রথম কভিড রোগী।

কভিডের বিস্তার ঠেকাতে পাব, ক্লাব, জিম, ক্যাফে, সিনেমাহল ও উপাসনালয়ের মতো সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এ কড়াকড়ি পদক্ষেপের ঘোষণা দেন।

খবরটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.




© All rights reserved © 2018-20 boguratribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com