ঘুষ লেনদেনের ফোনালাপ নিয়ে মিজান-বাছিরের পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জ

ঘুষ লেনদেনের ফোনালাপ নিয়ে মিজান-বাছিরের পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জ

ঘুষ লেনদেনের ফোনো রেকর্ড পুরোপুরি বানোয়াট বলে দাবি করলেন দুদকের বরখাস্ত পরিচালক এনামুল বাছির। তিনি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেন, ডিআইজি মিজানের সঙ্গে তার মোবাইলে কোনো কথাই হয়নি। পাল্টা চ্যালেঞ্জ করেছেন ডিআইজি মিজানও। তার দাবি, সত্যতা প্রমাণে প্রয়োজনে ফাঁস হওয়া ফোনো কথোপকথনটির ফরেনসিক পরীক্ষা করা হোক।

রবিবার ডিআইজি মিজানের সঙ্গে দুদক কর্মকর্তা এনামুল বাছিরের ঘুষ লেনদেনের ফোনো রেকর্ড ফাঁস হয়। পরের দিনই সাময়িক বরখাস্ত হন বাছির।

একদিন পরই সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন বাছির। নিজের পক্ষে সাফাই গাইলেন তিনি। বললেন, ডিআইজি মিজানের সাথে কেবল দুদক কার্যালয়েই কথা হয়েছে।

কিন্তু ডিআইজি মিজান তাঁর অভিযোগে এখনও অটল। তিনি আবারো দাবি করলেন, এনামুল বাছির তাঁর কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছেন।

ডিআইজি মিজানের অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানের তদন্ত কর্মকর্তা ছিলেন এনামুল বাছির। ২৩মে মিজানের বিরুদ্ধে মামলার সুপারিশসহ দুদকে প্রতিবেদন জমা দেন বাছির।

যাতে মিজানের ২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের তথ্যের সন্ধান ছিল।

খবরটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.




© All rights reserved © 2018-20 boguratribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com