কথা বলা ও ইন্টারনেট খরচ বাড়বে

কথা বলা ও ইন্টারনেট খরচ বাড়বে

টেলিযোগাযোগ খাতে বাড়তি শুল্ক আরোপে গ্রাহকের কথা বলা ও ইন্টারনেট ব্যবহারে খরচ বাড়বে। যা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথে বাধা বলে মনে করছেন এ খাত সংশ্লিষ্টরা। তাই প্রস্তাবিত বাজেটে বাড়তি শুল্ক প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা। সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে এক আলোচনায় এসব দাবি উঠে আসে। তাদের যৌক্তিক দাবিগুলো বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়।

বর্তমানে দেশে জিডিপিতে টেলিযোগাযোগ খাতের অবদান ৬ ভাগের বেশি। ২০২১ সালে যা আট ভাগ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এজন্য স্বতন্ত্র মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা শতভাগ এবং ইন্টারনেটের ব্যবহার ৬০ ভাগের ওপরে নেয়ার পরিকল্পনা সরকারের। 

মোবাইল অপারেটরগুলো বলছে, নতুন সিম কার্ড প্রতিস্থাপনের উপর শুল্ক ২০০ টাকা করায় গ্রাহকদের খরচ দ্বিগুণ হারে বাড়বে। এছাড়া সম্পূরক শুল্ক দ্বিগুণ বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করায় গ্রাহকদের অতিরিক্ত গুণতে হবে এক হাজার তিনশো কোটি টাকা। 

স্মার্ট ফোন আমদানিতেও বসছে অতিরক্তি ১৫ ভাগ শুল্ক। যা ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা বাড়াতে প্রতিবন্ধকতা হিসেবে কাজ করবে। 

এছাড়াও সর্বনিম্ন কর্পোরেট কর দশমিক সাত পাঁচ শতাংশ থেকে ২ শতাংশে উন্নীত করলে এ খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশংকা বিশ্লেষকদের।

তবে গ্রাহক স্বার্থে, তাদের এসব দাবি নিয়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সাথে আলোচনা চলছে বলে জানান টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব। 

টেলিযোগাযোগ খাতে নতুন বিনিয়োগ আকর্ষণে সরকারের নীতিগত সহায়তা চান অপারেটরা।

খবরটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.




© All rights reserved © 2018-20 boguratribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com