বিশ্ব থেকেই বিচ্ছিন্ন কাশ্মীর

বিশ্ব থেকেই বিচ্ছিন্ন কাশ্মীর

ভূস্বর্গ কাশ্মীর এখন মৃত্যুপুরী। সড়কে সড়কে ব্যারিকেড ও তল্লাসি চৌকি। সড়কে সাধারণের চলাচল সীমিত তাদের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি সেনা ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য। অবরুদ্ধ জম্মু-কাশ্মীর ঘুরে এসব তথ্য জানিয়েছেন বিবিসি বাংলার সাংবাদিক শুভজ্যোতি ঘোষ।

শুধু ভারত নয় গোটা বিশ্ব থেকেই বিচ্ছিন্ন কাশ্মীর। সড়কে একশ গজ পর পর ব্যারিকেড ও তল্লাশি চৌকি। সড়কে সাধারণের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি সেনা ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য।

টানা কারফিউ আর প্রায় আড়াই লাখ সেনা উপস্থিতিতে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে সেখানে। বাড়িতে খাবার নেই এবং রেশনও প্রায় শেষ। দোকান-পাট বন্ধ থাকায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে পারছেন না নাগরিকেরা। এখনও তারা পাচ্ছেন না ফোন বা ইন্টারনেট সেবা।

কাশ্মীরের বেশির ভাগ রাজনীতিক আটক এবং কেউ-বা গৃহবন্দি। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতির মতো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বাস ভবনের আশপাশে যেতে দেয়া হচ্ছে না কাউকে।

কোরবানির ঈদ সামনে রেখে শ্রীনগরে এসেছিলেন পশু বিক্রেতারা। তবে ক্রেতা না পেয়ে নগরীর বিভিন্ন মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে হতাশ বিক্রেতাদের।

কাশ্মীরের ৮০ ভাগ মানুষ সরকারের সিদ্ধান্ত সমর্থন জানিয়েছে বলে দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। তবে সাধারণ কাশ্মীরীদের প্রশ্ন কেন্দ্র সরকারের পক্ষে বিপুল সমর্থন থাকলে টানা কারফিউ কেন?

বিপুল সেনা সদস্য মোতায়েন থাকায় সড়কে বড় কোনো বিক্ষোভ-সমাবেশের খবর নেই। তবে কারফিউ শেষে পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেবে সেটিই দেখার অপেক্ষা।

খবরটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.




© All rights reserved © 2018-20 boguratribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com